সেপ্টেম্বর ২৪, ২০২১

সুনামগঞ্জে গ্রেফতার ইউপি চেয়ারম্যান

১ min read

নিউজ ডেস্ক : স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ঢুকে সাইদুর রহমান রাজিব নামের এক বখাটে থাপ্পড় মেরে কর্তব্যরত চিকিৎসকের কানের পর্দা ফাটিয়ে দেয়।এ ঘটনায় দায়ের করা মামলায় তার বাবা বিশ্বম্ভরপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি ও ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল কাইয়ুমকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

পুলিশ জানায়, সোমবার দুপুরে দলবল নিয়ে হাসপাতালে ঢুকে ডাক্তার আক্তারুজ্জামানের ওপর অতর্কিত হামলা চালায় রাজিব। থাপ্পড় মেরে তার কানের পর্দা ফাটিয়ে দেয় সে।

এই ঘটনায় সোমবার রাতে ডা. আক্তারুজ্জামান আখন্দ বাদী হয়ে ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল কাইয়ুম, তার ছেলে সাইদুর রহমান রাজিব ও অজ্ঞাত একজনকে আসামি করে বিশ্বম্ভরপুর থানায় মামলা করেন। এ মামলায় পুলিশ আব্দুল কাইয়ুমকে গ্রেফতার করলেও ছেলে সাইদুর রহমান রাজিব পলাতক রয়েছে।

হাসপাতাল সূত্র জানায়, চেয়ারম্যানের বখাটে পুত্র রাজিব বিশ্বম্ভরপুর হাসপাতালে গিয়ে নার্সদের উত্যক্ত করত। বিভিন্ন সময়ে মাদকদ্রব্য সেবন করে হাসপাতাল এলাকায় গিয়ে মাতলামি করত। তার এমন বখাটেপনার প্রতিবাদ করেন ডাক্তার আখতার উজ জামান আখন্দ।

এ কারণে রাজীব ওই ডাক্তারের ওপর ক্ষিপ্ত হয়ে সোমবার দুপুরে তার কক্ষে গিয়ে অশ্লীল ভাষায় গালিগালাজ শুরু করে। এক পর্যায়ে তাকে থাপ্পড় দিয়ে তার কানের পর্দা ফাটিয়ে ফেলে।

এ সময় সাধারণ জনতার প্রতিরোধের মুখে ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যাওয়ার সময় আইনগত ব্যবস্থা নিলে ডাক্তারকে দেখে নেয়ার হুমকি দেয় রাজিব। এদিকে উপজেলার সর্বোচ্চ পদের স্বাস্থ্য কর্মকর্তাকে বখাটে এভাবে নির্যাতন করায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন সুনামগঞ্জ বিএমএ নেতৃবৃন্দ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *