সেপ্টেম্বর ১৯, ২০২১

‘লেগ’ স্পিনারদের বিপ্লবে নজর ভেট্টোরির

নিউজ ডেস্ক: যেন চেনা যাচ্ছে না সাবেক এই তারকা স্পিনারকে। গোঁফ, লম্বা দাড়ি—মুখের অনেকখানি ঢেকে ফেলেছে। দীর্ঘাকায় মানুষটার চোখে সেই চশমা জোড়া আগের মতোই স্থির আছে। রাসেল ডমিঙ্গোদের সঙ্গেই ড্রেসিংরুম থেকে বের হয়ে মাঠে পা রাখেন ড্যানিয়েল ভেট্টোরি। শেরে বাংলার সবুজ জমিনে খেলোয়াড়ি জীবনে অনেকবারই পা রেখেছেন তিনি। প্রতিবারই ছিলেন বাংলাদেশের প্রতিপক্ষ। এবার ভূমিকা বদলেছে। এখন টাইগারদের ড্রেসিংরুমের অংশ তথা ঘরের মানুষ নিউজিল্যান্ডের এই সাবেক বাঁহাতি স্পিনার।

বাংলাদেশের দক্ষিণ আফ্রিকান কোচিং স্টাফদের সঙ্গেই গতকাল সকালেই ঢাকায় এসেছিলেন ভেট্টোরি। ক্রিকেটারদের ওয়ার্ম আপের সময়টা সহকর্মীদের সঙ্গে দাঁড়িয়ে কথা বলেই কাটিয়েছেন তিনি। পরে চলে গেছেন মিরপুর স্টেডিয়ামের ইনডোরে। সেখানেই দুই ঘণ্টা নেটে ঘাম ঝরিয়েছেন ক্রিকেটাররা।

বাংলাদেশের নতুন স্পিন কোচ ভেট্টোরি, সাবেক বাঁহাতি স্পিনার তিনি। কিন্তু গতকাল ইনডোরে তার ঘণ্টা দুয়েক সময় কেটেছে একটা নেটে চোখ রেখেই। যেখানে লেগ স্পিনার আমিনুল ইসলাম বিপ্লব বোলিং করছিলেন। এই তরুণের বোলিং পরখ করেছেন ভেট্টোরি। তার প্রখর দৃষ্টি নিবদ্ধ ছিল বিপ্লবের বোলিংয়ের দিকে। টার্ন বুঝতে একবার নেটের পেছনে গিয়ে দাঁড়িয়েছিলেন। কিছুক্ষণ থেকে আবার সামনে আসেন। একটা সময় থ্রোয়ার হাতে নিয়ে ব্যাটসম্যানদের বলও ছুঁড়েছেন ভেট্টোরি।

মজার বিষয়, গতকাল নেটে একমাত্র বাঁহাতি স্পিনার হিসেবে বোলিং করেছেন আরাফাত সানি। কিন্তু বাংলাদেশের স্পিন কোচকে দেখা গেল না, সানির বোলিংয়ের তত্ত্বাবধান করতে। পুরোটা সময় তিনি ব্যয় করেছেন বিপ্লবের পেছনে।

বোলিং শেষে ফেরার সময় বিপ্লব বলেছেন, বোলিং দেখলেও প্রথম দিনে খুব বেশি কিছু বলেননি ভেট্টোরি। তবে গুগলিটা দেখিয়েছেন বিপ্লবকে।

তবে ভেট্টোরির সঙ্গে কাজ করতে মুখিয়ে আছেন আরাফাত সানি। বর্তমান কোচকে একটা সময় অনুসরণও করতেন তিনি। গতকাল সানি বলেছেন, ‘একজন বাঁহাতি স্পিনার হিসেবে সবসময় কিন্তু আমরা ওর বোলিংটা অনুসরণ করতাম। যেহেতু উনি একজন গ্রেট স্পিনার, বাঁহাতিদের মধ্যে। সে আমার এখন কোচ, আজকে (গতকাল) তো প্রথম দিন। দেখা যাক অনুশীলন তো আরো আছে।’

ভেট্টোরির অভিজ্ঞতা থেকে শেখার আশায় আছেন সানি। গতকাল তিনি বলেছেন, ‘দলের সঙ্গে আছি, তার সঙ্গে শেয়ার করব কীভাবে কি করা যায়। কারণ তার অভিজ্ঞতা রয়েছে অনেক। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে খেলোয়াড় তো তিনি ছিলেনই, আইপিএলেও কোচিং করিয়েছেন। তার সঙ্গে কথা বলে আরো ভালো পারফরম্যান্স করতে পারব। তার সঙ্গে শেয়ার করলে হয়তো আরো উন্নতি সম্ভব হবে।’

ভিন্ন ভিন্ন উইকেটে বোলিং করা প্রসঙ্গে ভেট্টোরির কাছ থেকে জানতেই চাইবেন সানি। প্রায় সাড়ে তিন বছর পর জাতীয় দলে ফেরা এই বাঁহাতি স্পিনার গতকাল বলেছেন, ‘আসলে কোন উইকেটে কেমন বোলিং করতে হবে সেটা জরুরি। ভারতে কিন্তু অনেক ম্যাচ খেলেছেন তিনি, কোচিংও করাচ্ছেন। তাই উইকেটটি কিন্তু আমাদের চেয়ে সে অনেক ভালো জানে। কোন উইকেটগুলো কিরকম হতে পারে, কীভাবে বোলিং করলে ভালো পারফরম করা যায়। সেদিক থেকে এই জিনিসগুলোর ব্যাপারে আমি ধারণা নেওয়ার চেষ্টা করব।’

উপমহাদেশের কন্ডিশনে অনেক খেলেছেন ভেট্টোরি। সানির আশা, তার অভিজ্ঞতা থেকে উপকৃত হবে বাংলাদেশ। তিনি বলেছেন, ‘উনি হয়তো উপমহাদেশের না। কিন্তু আমরা তো উপমহাদেশের। ভারত, পাকিস্তান, শ্রীলঙ্কায় উইকেট অনেকটা একই। হয়তো তিনি সফল হতে পারেননি বা পারফরম করতে পারেননি। তার ধারণা কিন্তু অবশ্যই আছে। অভিজ্ঞতাও আছে। সেটা অনুসরণ করলে আমাদের জন্য ভালো হতে পারে।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *