Sat. Aug 8th, 2020

মোটি, মোটু, হাতি, ফ্যাটার ছিল আমার নাম : সোনাক্ষী

মোটি, মোটু, হাতি, ফ্যাটার ছিল আমার নাম : সোনাক্ষী

মোটি, মোটু, হাতি, ফ্যাটার ছিল আমার নাম : সোনাক্ষী

বিনোদন ডেস্ক : নিজের শারীরিক গঠনের জন্য প্রায়ই হেনস্তার শিকার হতে হয়েছে সোনাক্ষী সিনহাকে। তিনি বলেন, ‘খুব কম বন্ধুই আমাকে আমার নিজের নামে ডেকেছে। সব সময় মোটি, মোটু, হাতি, ফ্যাটার—এগুলোই ছিল আমার নাম। কিন্তু আমি সব সময় বিশ্বাস করেছি, আমি কেবল আমার ওজন আর আকৃতি নই, আমি এর বাইরে অনেক কিছু!’

প্রসঙ্গত, ২০১০ সালে ‘দাবাং’ ছবির মাধ্যমে সোনাক্ষীর বলিউড অভিষেক হয়। ছবিটিতে সালমান খানের বিপরীতে তাঁর সাবলীল অভিনয় প্রশংসিত হলেও কিছুটা মুটিয়ে যাওয়া শারীরিক অবয়বের কারণে অনেক তির্যক মন্তব্য শুনতে হয় সোনাক্ষীকে। কিন্তু শুরু থেকে বরাবরই শরীরের বাড়তি মেদ নিয়ে মোটেও অসন্তুষ্ট নন বলেই জানিয়েছেন প্রখ্যাত অভিনেতা শত্রুঘ্ন সিনহার মেয়ে সোনাক্ষী। একসময় ওজন কমিয়ে মেদহীন আকর্ষণীয় শারীরিক অবয়ব পাওয়ার জন্য শরীরচর্চার পেছনে প্রচুর সময় ব্যয় করছেন সোনাক্ষী। সোনাক্ষী বড় ভোজনরসিক ছিলেন। কিন্তু দ্রুত ওজন কমাতে গিয়ে তাঁর প্রিয় অনেক খাবার খাদ্যতালিকা থেকে বাদ দিতে হয়েছে। জিমে যাওয়া একটি অপছন্দের কাজ হলেও করতে হয়েছে। সুষম ও উচ্চ প্রোটিনসমৃদ্ধ খাবার খেয়ে নিজেকে ফিট রেখেছেন সোনাক্ষী।

বিখ্যাত ফিটনেস প্রশিক্ষক ইয়াসমিন কারাচিওয়ালার তত্ত্বাবধানে ছিলেন সোনাক্ষী। নিজেকে ফিট রাখতে সন্ধ্যা ছয়টার পর খাওয়া এড়িয়ে চলতেন। সকালে ও দুপুরের খাবারের তালিকায় ছিল গম, তাজা ফল, সবজি ও ডাল। মাছ–মুরগির মাংস বা ডিমের সাদা অংশ রাতের খাদ্যতালিকায়।