মাথাপিছু আয় ১৯০৯ ডলার


জবাবদিহি রিপোর্ট : ২০০৫-০৬ অর্থবছরে বাংলাদেশের মানুষের মাথাপিছু আয় ছিলো প্রায় ৫৪৩ ডলার, যা এখন ২০১৯-২০ অর্থবছরে সাড়ে তিন গুন বৃদ্ধি পেয়ে ১,৯০৯ ডলারে দাড়িঁয়েছেন।

আজ বৃহস্পতিবার বিকেলে ২০১৯-২০ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেট উপস্থাপনকালে অর্থমন্ত্রী অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল বিষয়টি জানান।তিনি ২০১৯-২০ অর্থবছরে বাংলাদেশের মানুষের মাথাপিছু আয় দাঁড়িয়েছে ১ হাজার ৯০৯ ডলারে।

বিশ্লেষণ করে দেখা যায়, গত ২০০৫-০৬ অর্থবছরে বাংলাদেশের মানুষের মাথাপিছু আয় ছিল প্রায় ৫৪৩ ডলার, যা এখন সাড়ে তিন গুণ বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১ হাজার ৯০৯ ডলারে।

বাজেট বক্তব্যে বলা হয়, দেশের সামগ্রিক আর্থিক অবস্থা ভালো হওয়ায় প্রবৃদ্ধি ও মাথাপিছু আয় বেড়েছে। সব খাতে আয় ভালো হয়েছে। শিল্প, বিনিয়োগ ও রেমিট্যান্সসহ সবকিছুর প্রবৃদ্ধি ভালো হয়েছে। প্রবৃদ্ধি ভালো হওয়ায় মাথাপিছু আয়ও বেড়েছে।

২০১১ সালে স্বাধীনতার ৪০ বছরের মাঝেই মাথাপিছু আয় ৯২৮ ডলারে উন্নীত হয়েছিল। তারপর ২০১১ থেকে মাত্র আট বছরের ব্যবধানে এই ৯২৮ ডলারও দ্বিগুণ বৃদ্ধি পেয়ে বর্তমানে ১৯০৯ ডলারে পৌঁছেছে।

যুক্তরাষ্ট্রের প্রবীণ অর্থনীতিবিদ প্রফেসর হলিস বি. শেনারি ১৯৭৩ সালে বলেছিলেন বাংলাদেশের মাথাপিছু আয় ৯০০ ডলারে পৌছাতে ১২৫ বছর সময় লাগবে। কিন্তু বাংলাদেশের ১২৫ বছর লাগেনি। ২০১১ সালে বাংলাদেশ স্বাধীনতার ৪০ বছরের মাঝেই মাথাপিছু আয় ৯২৮ ডলারে উন্নতি করেছে। তারপর ১৯০৯ ডলারে পৌছেছে।

0 30

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com
আজকের সংবাদ শিরোনাম :
%d bloggers like this: