সেপ্টেম্বর ১৬, ২০২১

ভোলার ঘটনার নেপথ্যে যারাই জড়িত থাকুক না কেন সবাইকে আইনের আওতায় আনা হবে

১ min read

নিউজ ডেস্ক : ভোলার ঘটনার নেপথ্যে যারাই জড়িত থাকুক না কেন সবাইকে আইনের আওতায় আনা হবে।
এ ঘটনায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।রোববার সন্ধ্যায় এক সংবাদ সম্মেলনে তারা এসব কথা বলেন।এই ঘটনায় পাঁচ সদস্যবিশিষ্ট একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। এ কমিটিকে আগামী সাত কার্যদিবসের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেয়ার কথা বলা হয়েছে।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকের মেসেঞ্জার রসূল (সঃ) কে নিয়ে কুরুচিপূর্ণ মেসেজ পাঠায়। এ নিয়ে আজ রোববার বেলা ১১টার দিকে বোরহানউদ্দিন ঈদগাহ মাঠে সর্বস্তরের তৌহীদি জনতার ব্যানারে বিক্ষোভ মিছিলের আয়োজন করা হয়।

এ বিক্ষোভ মিছিলটি না করার জন্য বোরহানউদ্দিন ঈদগাহ মসজিদের ইমাম মাওলানা জালাল উদ্দিন, বাজার মসজিদের ইমাম মাওলানা মিজানকে পুলিশ অনুরোধ জানায়। সাধারণ মানুষ আসার আগে বিক্ষোভটি বন্ধ ঘোষণা করতে বলেন। তাদের অনুরোধে এ দুই ইমাম সকাল ১০টার দিকেই যে সব লোক আসছে তাদের নিয়ে দোয়া মোনাজাতের মাধ্যমে বিক্ষোভ মিছিলটি সমাপ্ত করেন।

কিন্তু ততক্ষণে বোরহানউদ্দিনের বিভিন্ন গ্রাম থেকে হাজার হাজার লোক এসে ঈদগাহে জড়ো হয়। একপর্যায়ে তারা ওই দুই ইমামের ওপর ক্ষিপ্ত হয়। সেখানে থাকা পুলিশের ওপর চড়াও হয়। পুলিশ আত্মরক্ষার্থে ওই মসজিদের ইমামের রুমে আশ্রয় নেয়। একপর্যায়ে উত্তেজিত জনতা পুলিশকে লক্ষ্য করে ইট-পাটকেল নিক্ষেপ করতে থাকে। তারা নিজেদের বাঁচানোর জন্য উত্তেজিত মুসল্লীদের ওপর ফাঁকা গুলি ছুড়ে।

এতে সেখানে থাকা মুসল্লীরা আরও উত্তেজিত হয়ে পুলিশের ওপর আক্রমণ চালায়। সকাল ১০টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত দফায় দফায় পুলিশের সঙ্গে মুসল্লীদের সংঘর্ষ হয়। এতে চার মুসল্লী নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন ১০ পুলিশ সদস্যসহ প্রায় দেড় শতাধিক মুসল্লী।

একপর্যায়ে কয়েকটি আইডি থেকে ম্যাসেজগুলোর স্ক্রিনশট নিয়ে ফেসবুকে কয়েকজন প্রতিবাদ জানালে বিষয়টি সবার নজরে আসে। এমনকি বিষয়টি নিয়ে ফেসবুকে প্রতিবাদের ঝড় উঠে। এ অবস্থায় সন্ধ্যার পর বিপ্লব চন্দ্র বোরহানউদ্দিন থানায় আইডি হ্যাক হয়েছে মর্মে জিডি করতে আসলে পুলিশ বিষয়টি তদন্ত ও জিজ্ঞাসাবাদের জন্য বিপ্লব চন্দ্রকে তাদের হেফাজতে রাখেন। তাকে জিজ্ঞাসাবাদের পর পুলিশ এক হ্যাকারকে আটক করে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *