সেপ্টেম্বর ১৯, ২০২১

‘ভারতের মাটিতে বাংলাদেশের ড্র হচ্ছে জয়ের সমান’

১ min read

নিউজ ডেস্ক: বাংলাদেশ ভারতের সাথে তাদের মাটিতে ফুটবলে যা খেলেছে এতে দেশের মানুষ তাদের প্রশংসা না করে পারবে না এমনটাই মনে করেন ফুটবলবোদ্ধারা। আসলে নির্ধারিত সময়ের শেষ মুহূর্তে গোল খেয়ে ম্যাচটা হাতছাড়া হয় বাংলাদেশের। তাতে ভারতের বিপক্ষে জয় হাতছাড়া হলো তাদের। কলকাতার সল্ট লেক স্টেডিয়ামে বিশ্বকাপ বাছাইয়ের তৃতীয় ম্যাচে ভারত-বাংলাদেশের ম্যাচটি হয়েছে ১-১ গোলের ড্র।

প্রথম মিনিটে পেনাল্টির জোরালো আবেদন করেছিল বাংলাদেশ। বক্সের মধ্যে বল কাড়তে গিয়ে রাহুল ভেকে ফেলে দেন মোহাম্মদ ইব্রাহিমকে। ফাউল হলেও রেফারি পেনাল্টির আবেদনে সাড়া দেননি।

স্পষ্ট সুযোগ প্রথমে পায় ভারত। পঞ্চম মিনিটে তাদের দূর পাল্লার শট বিপদমুক্ত করে বাংলাদেশ। কিন্তু বল পান আশিক কুরুনিয়ান। তিনি বল দেন সুনীল ছেত্রীকে। বেঙ্গালুরু স্ট্রাইকারের ভলি সরাসরি গোলরক্ষক আশরাফুল ইসলাম রানা ধরেন।

১৩ মিনিটে ছেত্রীর দুর্বল হেড সহজে প্রতিহত করেন বাংলাদেশি গোলকিপার। চার মিনিট পর ভেকের শক্তিশালী হেড গোলপোস্টের ওপর দিয়ে চলে যায়। বাংলাদেশ দুর্দান্ত সুযোগ তৈরী করে ম্যাচের আধঘণ্টা পর। ৩১ মিনিটে মাঝমাঠ থেকে লম্বা পাস ধরে বক্সের মধ্যে গোলপোস্টের সামনে বল পান বিপলু আহমেদ। কিন্তু তিনি শট নেওয়ার আগে আনাস এদাথোদিকা বল বিপদমুক্ত করেন।

৩৫ মিনিটে দারুণ সেভে ভারতকে হতাশ করেন রানা। ভেকের লম্বা থ্রো থেকে মানবীর হেড করেন, আঙুলের আলতো ছোঁয়ায় বল মাঠের বাইরে পাঠান বাংলাদেশি গোলকিপার। ৩৯ মিনিটে আনাসের কাছ থেকে ছেত্রীর হেড গোলরক্ষকের কাছে চলে যায়।

তবে বাংলাদেশ তিন মিনিট পর গোল উদযাপনে মাতে। ৪২ মিনিটে জামাল ভূঁইয়ার ফ্রি কিকে গোলকিপার গুরপ্রীত সিং পোস্ট ছেড়ে বেরিয়ে এসে ফ্লাইট মিস করেন, এরপর সাদ উদ্দিনের দুর্দান্ত হেডে বল জড়ায় জালে। এই লক্ষ্যভেদী শটে ১-০ গোলে এগিয়ে থেকে বিরতিতে যায় বাংলাদেশ।

বিরতির ষষ্ঠ মিনিট পর ২-০ করতে পারতো বাংলাদেশ। বাঁ দিকে দারুণ ড্রিবলে সোহেল রানা বল দেন নাবীব নেওয়াজ জীবনকে, কিন্তু তার লক্ষ্যে নেওয়া শট গুরপ্রীতের পায়ে লেগে মাঠের বাইরে যায়। ৫৫ মিনিটে বাংলাদেশকে হতাশ হতে হয় ইব্রাহিমের শট ক্রসবারে আঘাত করলে।

৬০ মিনিটে বাংলাদেশকে স্বস্তি এনে দেন ইব্রাহিম। কর্নার থেকে অনিরুদ্ধ থাপার ক্রস বক্সের মধ্যে ঢোকে, আনাসের শক্তিশালী হেড গোলপোস্টের সামনে থেকে ব্লক করেন বাংলাদেশি উইঙ্গার। ৭২ মিনিটে বক্সের বাইরে থেকে সাহালের জোরালো শট ঠেকিয়ে দেন রানা, যদিও ওই মুহূর্তে অফসাইডে ছিলেন উদান্ত। পরের মিনিটে জীবন ভারতের রক্ষণভাগকে পেছনে ফেলে বল পান, গোলকিপার গুরপ্রীত তার চিপ আটকাতে পারেননি। গোললাইনের সামনে থেকে বল বিপদমুক্ত করেন আদিল খান। অফসাইডের বাঁশি বাজার পরও শট নেওয়ায় জীবন হলুদ কার্ড দেখেন। ৭৭ মিনিটে তার বদলি হিসেবে মাঠে নামেন মাহবুবুর রহমান সুফিল।

৭৬ মিনিটে ব্রান্ডনের কর্নার থেকে ছেত্রীর হেড গোলপোস্টের বাইরে দিয়ে গেলে হতাশ হয় স্বাগতিক দর্শকরা। ৮৪ মিনিটে ভারতের রক্ষণের দুর্বলতার সুযোগে বাংলাদেশ ব্যবধান দ্বিগুণ করতে পারতো। ডানপ্রান্ত থেকে সাদের ক্রস ভেকে বিপদমুক্ত করতে পারেননি। দুর্ভাগ্যবশত সুফিল ঠিক সময়ে শট নিতে না পারলে স্বস্তি পায় স্বাগতিকরা। ৮৮ মিনিটে ছেত্রীর শট বাংলাদেশ মাঠের বাইরে পাঠালে কর্নার পায় ভারত। ব্রান্ডনের কর্নার থেকে দুর্দান্ত হেডে ৮৯ মিনিটে সমতা ফেরান আদিল।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *