ব্যাংক নির্ভরশীলতায় বিপর্যয়ের আশঙ্কা


জবাবদিহি রিপোর্ট : আসছে ২০১৯-২০ অর্থবছরের বাজেটের ঘাটতি মেটাতে ব্যাংক ব্যবস্থা থেকে প্রায় ৫৫ হাজার কোটি টাকা ধার করতে পারে সরকার। সরকারি ব্যাংকগুলোর এই অর্থযোগানে সামর্থ্য থাকলেও নেই বেশিরভাগ ব্যাংকের।

বিশ্লেষকরা বলছেন, বাজেটের এ পরিকল্পনা বাস্তবায়নে তীব্র তারল্য সংকট দেখা দেয়ার পাশাপাশি ক্ষতিগ্রস্ত হবে বেসরকারি খাত।

উন্নয়নের জন্য বাজেটে ঘাটতি নতুন কিছু নয়। তবে ঘাটতি বাজেটের অর্থ জোগাড়ে সরকারের ব্যাংক নির্ভরশীলতা বড় ধরনের বিপর্যয় ডেকে আনতে পারে। বিশেষ করে ব্যাংক খাতের সামর্থ্য বিবেচনায় বাজেট প্রাক্কলন করা না হলে আসছে ২০১৯-২০ অর্থবছরের বাজেটে ঘাটতি হতে পারে ১ লাখ ৪৫ হাজার কোটি টাকা।

এক্ষেত্রে ৬০ হাজার কোটি টাকা বিদেশি উৎস থেকে ব্যাংক ব্যবস্থা থেকে ৫৪ হাজার ৮শ কোটি ও সঞ্চয়পত্রসহ অন্যান্য উৎস থেকে ৩০ হাজার ৮শ কোটি টাকা। এক্ষেত্রে সরকারি ব্যাংকগুলোর কিছুটা সামর্থ্য থাকলে প্রস্তুত নয় বেসরকারি ব্যাংকগুলো।

চলতি বাজেটে ৪২ হাজার ২৯ কোটি টাকা লক্ষ্য ধরা হলেও ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত ব্যাংক থেকে ৫ হাজর ৯৮৮ কোট টাকা ঋণ নিয়েছে সরকার। এরই মধ্যে ব্যাংক খাতের তারল্য সংকট তীব্র হয়ে উঠেছে।

এই অবস্থায় আসছে বাজেটে সরকারের ব্যাংক ব্যবস্থা থেকে বিপুল পরিমাণে অর্থ সংগ্রহের পরিকল্পনায় বেসরকারি খাত ক্ষতিগ্রস্ত হবে বলে মনে করেন এই বিশ্লেষক।

আগামী বাজেটে সঞ্চয়পত্রের নির্ভরতা কমানোর পরিকল্পনা নিয়েছে সরকার। এক্ষেত্রে প্রকৃত ভোক্তাদের কাছেই সঞ্চয়পত্র বিক্রি নিশ্চিত করা হবে বলে জানিয়েছেন অর্থমন্ত্রী। কিন্তু সুদ হার না কমিয়ে এটি সম্ভব নয় বলে মনে করেন এই অর্থনীতিবিদ।

তিনি মনে করেন, সরকারের উচিৎ বাজেটের আগেই আর্থিক খাতের বাস্তবতার নিরিখে পরিকল্পনা চূড়ান্ত করে নেয়া।

0 30

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আজকের সংবাদ শিরোনাম :