Sat. Aug 8th, 2020

বর্জ্য অপসারণের কাজ সমাপ্ত করেছে দুই সিটি কর্পোরেশন

1 min read
বর্জ্য অপসারণের কাজ সমাপ্ত করেছে দুই সিটি কর্পোরেশন

বর্জ্য অপসারণের কাজ সমাপ্ত করেছে দুই সিটি কর্পোরেশন

নিউজ ডেস্ক : ঈদুল আজহায় কোরবানির পশুর বর্জ্য অপসারণের কাজ সমাপ্ত করেছে ঢাকার দুই সিটি কর্পোরেশন। এ কাজে যুক্ত ছিলেন প্রায় সাড়ে ১৭ হাজার কর্মী। এরইমধ্যে প্রধান সড়কগুলোয় থাকা কোরবানির পশুর অধিকাংশ বর্জ্য অপসারণ করা হয়েছে।
অপরদিকে নগরীর অলি-গলিতে অল্প পরিসরে যেসব বর্জ্য আছে সেগুলো পরিস্কার করা হচ্ছে। ব্লিচিং পাউডার ও তরল জীবাণুনাশক ছিটিয়ে জীবাণুমুক্ত করা হচ্ছে অপরিচ্ছন্ন জায়গাগুলো। ২৪ ঘণ্টার মধ্যে রাজধানীর কোরবানির বর্জ্য অপসারণ হবে বলে প্রত্যাশা করেছিলেন দুই মেয়র।

বেঁধে দেয়া সময়ের অনেক আগেই কোরবানির বর্জ্যমুক্ত করেছে ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন। শনিবার দুপুর ২টার মধ্যে কোরবানির বর্জ্য আনুষ্ঠানিকভাবে অপসারণ করা শুরু হয়। টানা কাজ করে রাত ১২টার মধ্যে সব ওয়ার্ডকে বর্জ্যমুক্ত ঘোষণা করা হয়।

ডিএনসিসির প্রধান বর্জ্য ব্যবস্থাপনা কর্মকর্তা কমডোর এম সাইদুর রহমান এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

এদিকে বিকেলে বর্জ্য অপসারণ কাজের উদ্বোধনের সময় মেয়র আতিকুল ইসলাম ২৪ ঘণ্টার মধ্যে কোরবানির বর্জ্যমুক্ত করার ঘোষণা দিয়েছিলেন। অর্থাৎ বেঁধে দেয়া সময়ের অনেক আগেই ডিএনসিসি বর্জ্যমুক্ত হলো।

এছাড়া বেঁধে দেয়া সময়ের আগেই ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের (ডিএসসিসি) ৭৫টি ওয়ার্ডে ২৪ ঘণ্টার মধ্যে বর্জ্যমুক্ত করা হয়েছে।

রোববার ডিএসসিসির জনসংযোগ কর্মকর্তা মো. আবু নাছের এ তথ্য জানান।

তিনি বলেন, শনিবার বেলা ২টায় বর্জ্য অপসারণ শুরু করা হয়। ২৪ ঘণ্টার মধ্যেই ডিএসসিসির শতভাগ বর্জ্য অপসারণ করা হয়েছে।

এর আগে শনিবার রাত সাড়ে ১০টা পর্যন্ত ডিএসসিসির ৩২টি ওয়ার্ডের শতভাগ বর্জ্য অপসারণ করা হয়। আজ দুপুর ১টা ৩০ মিনিটের মধ্যে বাকি বর্জ্য অপসারণ করা হয়।

ডিএসসিসির প্রধান বর্জ্য ব্যবস্থাপনা কর্মকর্তা এয়ার কমডোর বদরুল আমিন বলেন, ডিএসসিসিতে বর্জ্য অপসারণে কাজ করছে ৬ হাজার কর্মী। বর্জ্য অপসারণ কার্যক্রম তদারকির লক্ষ্যে কন্ট্রোল রুম স্থাপন করা হয়েছে। বর্জ্য অপসারণে ৩০০টি গাড়ি কাজ করেছে। এ কারণে ঢাকা দক্ষিণে ২৪ ঘণ্টার মধ্যে বর্জ্য অপসারণ করা সম্ভব হয়েছে।