সেপ্টেম্বর ২৭, ২০২১

বগুড়ার শাজাহানপুরে কাস্টমস কর্মকর্তার কাণ্ড!

নিউজ ডেস্ক : মুক্তিযোদ্ধা বাবার কবরের ওপর টয়লেট তৈররি অভিযোগ উঠেছে তারই কাস্টমস ছেলের বিরুদ্ধে।কিন্তু খবর পেয়ে স্থানীয়রা টয়লেটটি ভেঙে দিয়েছেন বলে জানা গেছে।উপজেলার বারুনিঘাট এলাকায় মুক্তিযোদ্ধা আবদুস সাত্তারের মৃত্যুর দুই বছরের তার মাথায় কবর দখল করে তার ছেলে কাস্টমস ইন্সপেক্টর আবদুর রউফ খান টয়লেট নির্মাণ করেন।কবর দখল করে প্রাচীর তুললেও রোববার বিকালে স্থানীয় জনগণ ও মুক্তিযোদ্ধারা তা ভেঙে দিয়েছেন।মুক্তিযোদ্ধা আবদুস সাত্তার গত ২০১৭ সালের মারা যান। মৃত্যুর পর তার কবর বাদে ১২ শতক জমি দুই ছেলে ও দুই মেয়ে ভাগ বাটোয়ারা করে নেন।এই মুক্তিযোদ্ধার কোটায় তার দুই ছেলে ও এক মেয়ে সরকারি চাকরিও লাভ করেন। তাদের মধ্যে কাস্টমস ইন্সপেক্টর আবদুর রউফ খান বর্তমানে বগুড়ায় কর্মরত।
তার বড় ছেলে স্থানীয় কাবাষট্টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক আসাদ খান মুনির অভিযোগ করেন, তার বাবার মৃত্যুর দুই বছর পার না হতেই ছোট ভাই আবদুর রউফ খান কবর দখল করেন। সেখানে তিনি সেখানে টয়লেট নির্মাণ করছেন। তিনি বাধা দেয়ার চেষ্টা করেও ব্যর্থ হয়েছেন।
তারপরে বাবার কবর রক্ষায় মুক্তিযোদ্ধাদের সহযোগিতা চান আসাদ খান। বাবার সহযোদ্ধারা ঘটনাস্থলে এসে অমানবিক ঘটনাটি দেখে শাজাহানপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে ব্যবস্থা নিতে অনুরোধ জানান।গতকাল বিকাল ৫টার দিকে মুক্তিযোদ্ধা ও স্থানীয় মুরুব্বিরা এসে কবরের ওপর তোলা প্রাচীর ভেঙে দেন।সে দাবি করেন, বাবার কবর দখল করে কিছু করছেন না। মুরুব্বি ও মুক্তিযোদ্ধারা এসে সমস্যার সমাধান করে দিয়েছেন। বাবার কবর আগের মতই আছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *