পেরেও পারলো না ওয়েস্ট ইন্ডিজ


স্পোর্টস ডেস্ক : ইস! অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে পেরেও পারলো না ওয়েস্ট ইন্ডিজ। অস্ট্রেলিয়ার ছুড়ে দেওয়া ২৮৯ রান সংগ্রহ করতে গিয়ে কি খেলাটা না দেখালো তারা। খেলায় এতটাই উত্তেজনা ছিল যে সেমিফাইনালের আগেই যেন একটা টানটান উত্তেজনার সেমিফাইনাল দেখে নিল ক্রিকেট ভক্তরা। খেলায় কখনও মনে হচ্ছিল অস্ট্রেলিয়া জিতে গেলো, আবার কখনও মনে হচ্ছিল ওয়েস্ট ইন্ডিস জিতবে। কিন্তু শেষ রক্ষা হলো না। তীরে এসে তরী ডুবলো ওয়েস্ট ইন্ডজের। নির্ধারিত ৫০ ওভারে ২৬৯ রানেই গুটিয়ে গেল ওয়েস্ট ইন্ডিজের সবকটি উইকেট।

দিনের শুরুতে টসে জিতে অস্ট্রেলিয়াকে বেটিং এ পাঠায় ওয়েস্ট ইন্ডিজ। ওয়েস্ট ইন্ডিজ দুর্দান্তভাবে ফিল্ডিং এর কারনে ২৮৯ রানে আটকে যায় অস্ট্রেলিয়া। যদিও এক ওভার থাকতেই দুর্দান্ত প্রতাপশালী অস্ট্রেলিয়া অল আউট হয়ে যায়।
প্রথমে ব্যাট করতে রেখে প্রথম প্রতাপশালী অস্ট্রেলিয়া তার প্রভাব দেখায়। ব্যাটে আনতে থাকে চার ও ছক্কার ধারাবাহিকতা আনার আগেই ৩৮ রানে তুলে অস্ট্রেলিয়ার ৪ উইকেট তুলে নেয় ওয়েস্ট ইন্ডিজ। অ্যারন ফিঞ্চ, ডেভি ওয়ার্নার, উসমান খাজা ও ম্যাক্সওয়েলের উইকেট হারিয়ে চাপের মধ্যে অসিরা। এই চার জনের মধ্যে উসমান সর্বোচ্চ ১৩ রান করার সুযোগ পান। গ্ল্যান ম্যাক্সওলকে রানের খাতাই খুলতে দেননি কটরিল। দ্বিতীয় বলেই ফেরেন অস্ট্রেলিয়ান এ অলরাউন্ডার।

সেখান থেকে স্টিভ স্মিথ এবং কুল্টার নাইল দারুণ ব্যাটিং করে ২৮৯ রানের লক্ষ্য এনে দেন দলকে। ৬০ বলে খেলেন ৯২ রানের দুর্দান্ত এক ইনিংস। যাতে ছিল ৮ চার আর ৪টি ছক্কার মার। এছাড়াও স্টিভেন স্মিথ খেলেন ৭৩ রানের এক ইনিংস ও উইকেট রক্ষক ব্যাটসম্যান এলিক্স কেরির ব্যাট থেকে আসে ৪৫ রান। কটরেলের হাতে দারুণ এক ম্যাচ দিয়ে ফেরেন স্মিথ। টপ অর্ডারে ধাক্কা সামাল দেওয়ায় স্মিথের কাজ। কিন্তু নাথান কুল্টার নাইল অসাধারণ ব্যাটিং করেছেন।
অস্ট্রেলিয়ান সেরা চার ব্যাটসম্যান ক্যাচ তুলে দিয়ে ফেরেন। ফিঞ্চ, খাজা ও ম্যাক্সওয়েলের ক্যাচ তালুবন্দী করেন উইন্ডিজ উইকেটকিপার শাই হোপ। ডেভিড ওয়ার্নারের ক্যাচ তুলে নেন সিমরন হিতমার।

ওয়েস্ট ইন্ডিজের প্রয়োজন ২৮৯ রান। ব্যাট করতে নেমে ১০ ওভারে ৬৭ রান দিয়ে ৩ উইকেট নেন কার্লোস ব্রাথওয়েট। বড় রানের টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে ৯৯ রানেই নেই ৩ উইকেট। এভিন লুইচ ১, ক্রিস গেইল ২১ ও নিকোলাস পুরান প্যাভেলিয়নে ফেরেন ৪০ রানে। ১টি করে উইকেট পান মিচেল স্টার্ক, প্যাট কামিন্স ও অ্যাডাম জাম্পা। শুরুর ধক্কা সামলে ধীরে এগুচ্ছে গেইলরা। তবে শুরুতে ধাক্কা দেন শেলডম কটলের-ওসামে থমাসরা। শুরুর চার উইকেটের দুটি নেন কটরেল। একটি করে উইকেট তুলে নেন ওসানে থমাস এবং আন্দ্রে রাসেল। পরে আক্রমণে এসে থমাস-রাসেল আরও একটি উইকেট নেন। অন্য উইকেটটি নেন জেসন হোল্ডার। অস্ট্রেলিয়ার দশ উইকেটই উইন্ডিজ পেসাররা দখল করেন।
নটিংহ্যামের ট্রন্টব্রিজে টস হেরে ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই ক্যারিবীয় বোলিং তোপে নাকাল হয়ে পড়ে অস্ট্রেলিয়া। কিন্তু সেই ছোট রানের লজ্জার হাত থেকে ত্রাতা হয়ে দাঁড়ান অজি পেসার কুল্টার নাইল।

ওয়েস্ট ইন্ডিজের পক্ষে ২টি করে উইকেট নেন ওসানে থমাস, আন্দ্রে রাসেল আর শেলডন কটরেল।
এর আগে, অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে টস জিতে প্রথমে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন ওয়েস্ট ইন্ডিজ অধিনায়ক জেসন হোল্ডার। বৃহস্পতিবার ইংল্যান্ডের নটিংহামের ট্রেন্ট ব্রিজে বাংলাদেশ সময় বিকাল সাড়ে ৩টায় শুরু হয়।
বিশ্বকাপে নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে মুখোমুখি হচ্ছে বর্তমান চ্যাম্পিয়ন অস্ট্রেলিয়া-ওয়েস্ট ইন্ডিজ। নিজেদের প্রথম ম্যাচে পাওয়া জয়ের ধারা অব্যাহত রাখতেই মাঠে নেমেছে দুই শক্তিশালী দল।

0 30

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আজকের সংবাদ শিরোনাম :
%d bloggers like this: