নামমাত্র শুল্কে ২০ ভরি স্বর্ণ আনতে পারবেন প্রবাসীরা


জবাবদিহি রিপোর্ট : দেশে স্বর্ণ বা রৌপ্য আনতে বিদেশফেরত যাত্রী বা প্রবাসীরা পেতে যাচ্ছেন শুল্ক ছাড়ের বিশেষ সুযোগ। আগামী ২০১৯-২০ অর্থবছরের বাজেটে ব্যাগেজ রুলে পরিবর্তন এনে এ সুযোগ দেওয়া হবে। বিদেশফেরত যাত্রী বা প্রবাসীরা এতোদিন মাত্র ১০০ গ্রাম স্বর্ণ বিনা শুল্কে আনতে পারতেন। এখন তারা শুল্কবিহিন এ স্বর্ণের পাশাপাশি চাইলে অতিরিক্ত হিসেবে সর্বোচ্চ ২৩৪ গ্রাম বা ২০ ভরি স্বর্ণ আনতে পারবেন।

অতিরিক্ত এ স্বর্ণ আনতে দিতে হবে ভরিতে মাত্র ১ হাজার টাকা শুল্ক। আগে অতিরিক্ত এ স্বর্ণ আনতে দিতে হতো ভরিতে ৩ হাজার টাকা। অর্থাৎ আগামী বাজেট থেকে অতিরিক্ত এ স্বর্ণ আনতে ভরিতে ২ হাজার টাকা ছাড়ের সুযোগ কার্যকর হবে। স্বর্ণের সাথে রৌপ্যের ক্ষেত্রেও এমন সুযোগ রাখা হয়েছে বলে অর্থ মন্ত্রণালয় ও জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) সূত্রে জানা গেছে।

দেশে অবৈধ স্বর্ণের লাগাম টানতে ও জুয়েলারি শিল্পকে শৃঙ্খলায় আনতে এ উদ্যোগ নেয়া হচ্ছে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে। সূত্রে জানায়, সরকার জুয়েলারি ব্যবসাকে শৃঙ্খলার মধ্যে আনতে চায়। নীতিমালা না থাকার অজুহাতে অবৈধ স্বর্ণের রমরমা বাণিজ্যে অনেকে ফুলে ফেঁপে উঠেছে। এখনও বেশির ভাগ ব্যবসায়ী অবৈধ স্বর্ণের ব্যবসা করেন। বৈধভাবে স্বর্ণ আমদানিকে উৎসাহিত করতে এবং রাজস্ব আদায় বাড়াতে ব্যাগেজ রুলে পরিবর্তন আনা হচ্ছে।

আগে একজন বিদেশফেরত যাত্রী বা প্রবাসী বিদেশ থেকে দেশে আসার সময় বিনা শুল্কে ১০০ গ্রাম বা সাড়ে ৮ ভরি (এক ভরিতে ১১ দশমিক ৬৬৪ গ্রাম) ওজনের স্বর্ণালংকার ও ২০০ গ্রাম ওজনের রূপার গহনা আনতে পারতেন। এ ক্ষেত্রে এক প্রকারের অলংকার ১২টির বেশি আনা যেত না। আগামী বাজেটেও এ সুবিধা বহাল রাখা হচ্ছে। তবে এর সঙ্গে নতুন সুবিধা দেয়া হচ্ছে।

সূত্র আরও জানায়, ১০০ গ্রাম স্বর্ণালংকারের পর চাইলে যে কেউ বৈধ পথে আরও স্বর্ণালংকার বা স্বর্ণের বার আনতে পারবেন। এ ক্ষেত্রে তাকে ভরিপ্রতি এক হাজার টাকা শুল্ক দিতে হবে। সর্বোচ্চ ২৩৪ গ্রাম স্বর্ণের বার বা ২০ ভরি স্বর্ণালংকারে এ সুবিধা পাওয়া যাবে। অর্থাৎ ২০ ভরি স্বর্ণালংকারের জন্য ২০ হাজার টাকা শুল্ক দিতে হবে। এর বেশি কেউ স্বর্ণের বার বা স্বর্ণালংকার আনলে তাকে ৩৮ দশমিক ৮৩ শতাংশ শুল্ক দিতে হবে।

অর্থাৎ আগে ১০০ গ্রাম ওজনের স্বর্ণালংকার শুল্কমুক্ত সুবিধায় আনতে পারত বিদেশফেরত যাত্রী বা প্রবাসীরা। এরপর বাড়তি স্বর্ণের বার আনতে ভরিপ্রতি ৩ হাজার টাকা দিতে হতো। আগামী অর্থবছর থেকে ১০০ গ্রামের পর আরো ২৩৪ গ্রাম ওজনের স্বর্ণের বার বা স্বর্ণালংকার ভরিপ্রতি এক হাজার টাকা শুল্ক দিয়ে আনতে পারবেন। অবশ্য এক বছরে ৩ বারের বেশি ব্যাগেজ রুলের এ সুবিধা পাওয়া যাবে না।

0 30

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আজকের সংবাদ শিরোনাম :
%d bloggers like this: