Sat. Mar 28th, 2020

টোকিও অলিম্পিকে খেলবে না কানাডা

টোকিও অলিম্পিকে খেলবে না কানাডা

টোকিও অলিম্পিকে খেলবে না কানাডা

স্পোর্টস ডেস্ক: করোনাভাইরাসের কারনে স্তম্ভিত হয়ে গেছে বিশ্বের ক্রীড়াঙ্গন। সব ধরনের খেলাই বন্ধ আছে। কবে নাগাদ আবার প্রান ফিরে পাবে ক্রীড়াঙ্গন তা বলা যাচ্ছে না। অনির্দৃষ্টকালের জন্য সব ধরনের ইভেন্ট স্থগিত করা হয়েছে। মহামারি আকার ধারন করা এ ভাইরাসের কারনে পিছিয়ে যাচ্ছে আসন্ন টোকিও অলিম্পিক।

তবে টোকিও অলিম্পিক ও প্যারালিম্পিকে অংশ নিচ্ছে না কানাডা। এরই মধ্যে প্রথম দেশ হিসেবে কানাডা নিজেদের প্রত্যাহার করে নিয়েছে তারা। বেশ কিছুদিন আগে জাপানের প্রধানমন্ত্রী শিনজো আবে বলেছিলেন, অলিম্পিক মাঠে গড়ানো নিয়ে তারা আশাবাদী। কিন্তু সোমবার উল্টো সুরে কথা বলেছেন জাপানের প্রধানমন্ত্রী। তিনি বলেছেন, অলিম্পিক স্থগিতের সম্ভাবনা অনিবার্য হয় দাঁড়িয়েছে। এর পরেই কানাডা নিজেদের প্রত্যাহার করে নেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয়। কানাডার অলিম্পিক ও প্যারালিম্পিক কমিটি বলেছে, সংশ্লিষ্ট অ্যাথলেট, গোষ্ঠী ও কানাডার সরকারের সঙ্গে আলোচনা করেই কঠিন এই সিদ্ধান্তটি তারা নিয়েছে। তারা আন্তর্জাতিক অলিম্পিক ও প্যারালিম্পিক কমিটি ও বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার কাছে আহ্বান করেছে, এক বছরের জন্য ইভেন্টটি স্থগিত রাখার জন্য। অস্ট্রেলিয়াও বলছে, এই অবস্থায় ইভেন্টটি চলতে পারে না। দেশটি তাদের অ্যাথলেটদের ২০২১ সালের জন্য প্রস্তুতি নিতে বলেছে। গেমস শুরু হওয়ার কথা ছিল আগামী ২৪ জুলাই।

পিছিয়ে যাচ্ছে টোকিও অলিম্পিক: জাপানের টোকিওতে চলতি বছরের জুলাইয়ে হওয়ার কথা রয়েছে এবারের অলিম্পিক গেমস। সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে আগামী ২৪ থেকে ৯ আগস্ট পর্যন্ত অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিলো ‘দ্য বিগেস্ট শো অন আর্থ’ অলিম্পিক। কিন্তু উদ্ভূত করোনাভাইরাস পরিস্থিতির কারণে গেমস শুরুর চার মাস আগেই স্থগিত হওয়ার পরিক্রম দেখা দিয়েছে। আয়োজকরা এরই মধ্যে জানিয়েছে, গেমস পিছিয়ে দেয়ার ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেয়ার জন্য তারা বৈঠকে বসবে।

প্রাথমিকভাবে গেমস পেছানোর ব্যাপারে আলোচনা করতেই রাজি ছিলেন না টোকিও অলিম্পিকের আয়োজকরা। বিশ্বজুড়ে খেলাধুলার প্রায় সব ইভেন্ট স্থগিত করা হলেও, তাদের আশা ছিলো জুলাইয়ে যথাসময়েই হবে এবারের অলিম্পিক। এরই মধ্যে গত শুক্রবার টোকিওতে পৌঁছেছে এবারের অলিম্পিকের মশাল। যা আরও উৎসাহিত করেছে আয়োজকদের।

কিন্তু করোনা পরিস্থিতি জটিল থেকে জটিলতর হচ্ছে বিধায়, এখন একপ্রকার বাধ্য হয়েই গেমস পেছানোর সিদ্ধান্ত নেয়া হচ্ছে। ডেইলি মেইলের প্রতিবেদন অনুযায়ী, এ কথা জানিয়েছেন টোকিও অলিম্পিক আয়োজক কমিটির এক নির্ভরযোগ্য সূত্র। তিনি বলেছেন, ‘অবশেষে আমাদের নির্দেশ দেয়া হয়েছে গেমস পেছানোর ব্যাপারে আলোচনা করার জন্য। আমরা ভিন্ন পরিকল্পনার দিকে এগুচ্ছি। হয়তো প্ল্যান বি, সি বা ডি বাস্তবায়ন করা হবে। যেখানে স্থগিত করার সময়টাও ভিন্ন হবে।’ আরেকটি সূত্র জানাচ্ছে, গেমস পেছানোর ব্যাপারে সিদ্ধান্তহীনতায় ভুগছে আয়োজকরা। অলিম্পিক স্থগিত করার সিদ্ধান্ত নিতে যত দেরি হবে, এর মূল্য তত বেশি দিতে হবে বলে জানিয়েছে সুত্রটি। ফলে অতিশীঘ্রই গেমস পেছানোর সিদ্ধান্ত আসবে বলে ধারণা করা হচ্ছে।