জানুয়ারি ২০, ২০২১

গভীর রাতে অসুস্থ রোগীকে হাসপাতালে পৌঁছে দিল পুলিশ

১ min read
গভীর রাতে অসুস্থ রোগীকে হাসপাতালে পৌঁছে দিল পুলিশ

গভীর রাতে অসুস্থ রোগীকে হাসপাতালে পৌঁছে দিল পুলিশ

কে এম, রাশেদ কামাল, মাদারীপুর : গভীর রাতে অসুস্থ রোগীকে পুলিশ ভ্যানে করে মাদারীপুর সদর হাসপাতালে পৌঁছে দিয়ে মানবিক দৃষ্টান্ত স্থাপন করলেন মাদারীপুর সদর মডেল থানার এ এস আই মোঃ আলতাফ হোসেন। ‌ রোগীর স্বজনরা গভীর রাতে কোনরকম যানবাহন না পাওয়ায় এ পুলিশ কর্মকর্তা এগিয়ে আসেন। পুলিশের এ মানবিক আচরণে মুগ্ধ রোগীর স্বজনেরা।

রোগীর স্বজন সূত্রে জানা যায়, গত বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত আড়াইটার দিকে অসুস্থ হয়ে পড়েন সাহেবরামপুর কবি নজরুল ডিগ্রী কলেজের প্রভাষক মোঃ আবুল হোসেন এর স্ত্রী নাজমা বেগম (৪৫)। সাথে সাথেই তার দুই ছেলে মাকে হাসপাতালে নেয়ার জন্য বেশ কয়েকটি আম্বুলেন্সকে ফোন দেয়।

গভীর রাতে কোনো এম্বুলেন্স না পেয়ে প্রধান সড়কে এসে যানবাহনের জন্য অপেক্ষা করে। কিছুক্ষণ পর পুলিশের গাড়ি দেখতে পাওয়ায় হাত ইশারা করে গাড়ি থামায় তারা। মায়ের অসুস্থতার কথা পুলিশকে জানালে এ এস আই আলতাফ হোসেন সহানুভূতি দেখিয়ে তাদেরকে পুলিশের গাড়িতে তুলে নেন। পুলিশ ভ্যানে করে সদর হাসপাতালে পৌঁছে দিয়ে ডাক্তার ডেকে নিজেই ভর্তি করে দেন রোগীকে।

নাজমা বেগমের বড় ছেলে সাইফুল্লাহ আবিদ বলেন, ” রাত আড়াইটার দিকে আম্মার হঠাৎ প্রেসার উঠে ভীষণ অসুস্থ হয়ে পড়েন। এমনকি তাঁর শ্বাস-প্রশ্বাস নিতে ভীষণ কষ্ট হচ্ছিল। আমরা দুশ্চিন্তাগ্রস্ত হয়ে হাসপাতালে নেয়ার জন্য বিভিন্ন আম্বুলান্সকে ফোন করি।

রাত্র বেশী হওয়ায় কোনো এম্বুলেন্স পাওয়া যায়নি। বাধ্য হয়ে ছোট ভাইকে নিয়ে রাস্তায় গিয়ে দাঁড়াই। এমন সময় পুলিশের গাড়ি আসলে তার কাছে ঘটনাটি জানালে তিনি সদয় হয়ে আমাদেরকে পুলিশ ভ্যানে করে হাসপাতালে পৌঁছে দিয়ে ডাক্তার ডেকে ভর্তি পর্যন্ত করে দেন। তিনি অত্যন্ত একজন মানবিক পুলিশ। তাঁর প্রতি আমরা কৃতজ্ঞ।

অসুস্থ নাজমা বেগম বলেন, “গভীর রাতে আমি অসুস্থ হয়ে পড়ি। এ সময় আমাদের ছেলেদের মুখে আমার অসুস্থতার কথা শুনে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেন এএসআই আলতাফ হোসেন। পুলিশের ভ্যানগাড়িতে করে হাসপাতালে পৌঁছে দিয়ে ভর্তি পর্যন্ত করে দিয়েছেন তিনি।

তাঁর এ অবদান কখনও ভুলব না।এ এস আই মোঃ আলতাফ হোসেন জানান, রাত আনুমানিক তিনটার দিকে শহরের কুলপদ্বী এলাকা থেকে আমরা মুভ করছিলাম। পানিছত্র এলাকায় আসতে দেখি দুটি ছেলে রাস্তায় দাঁড়িয়ে গাড়ির জন্য বলা যায় একধরনের হাহাকার করছে।

আমি গাড়ি থামিয়ে ওদের মুখে ওদের মায়ের অসুস্থতার কথা শুনে আমার ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তার অনুমতি সাপেক্ষে তাদেরকে আমাদের পুলিশের গাড়িতে তুলে হাসপাতালে পৌঁছে দেই। আসলে মানুষের সেবার জন্যই তো পুলিশ।

উল্লেখ্য, মাদারীপুরের সুযোগ্য পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মাহবুব হাসান এর নির্দেশনায় এবং সদর মডেল থানার ওসি কামরুল হাসান এর নেতৃত্বে সদর থানার পুলিশ সদস্যগণ আইন-শৃঙ্খলা রক্ষা ছাড়াও বিভিন্ন মানবিক কাজ করে ইতোমধ্যে দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *