সেপ্টেম্বর ১৯, ২০২১

‘ক্রিকেট ধর্মঘটে অশুভ উদ্দেশ্য ছিল কি না তা খোঁজা হচ্ছে’

১ min read

নিউজ ডেস্ক: ক্রিকেটারদের ধর্মঘটে কোনো অশুভ উদ্দেশ্য ছিল কি না তা খোঁজা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। বৃহস্পতিবার সচিবালয়ে সমসাময়িক ইস্যু নিয়ে সংবাদ সম্মেলনে প্রশ্নের জবাবে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের এ কথা জানেন।

ক্রিকেটারদের ধর্মঘট ডাকার পর উদ্ভূত সমস্যার আপাতত সমাধান হয়েছে। অনেকে বলছেন, বিসিবিতে শুদ্ধি অভিযান চালানো উচিত, আগে আপনি তো যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বে ছিলেন- এ বিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করলে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘বিসিবি, ক্রীড়া মন্ত্রণালয়; ওখানে তাদের নিজস্ব বিষয় আছে। ক্রিকেটের একটা বোর্ড আছে, সেই বোর্ডই ক্রিকেটের বিষয়গুলো তদারক করে। যেটা ঘটে গেছে, সেটার শান্তিপূর্ণ ও সম্মানজনক সমাধান হয়ে গেছে।’

তিনি বলেন, ‘আমার সঙ্গে সাকিব আল হাসানের কথা হয়েছে- এই সমাধানে সন্তুষ্ট হয়েছেন। দেরিতে হলেও সমস্যাটি সমাধান হওয়ায় সারা জাতি স্বস্তি পাচ্ছে। কারণ কিছুদিন পরই ভারতে আমাদের টেস্ট, টি-টুয়েন্টি আছে। এ সময় ক্রিকেটারদের ধর্মঘট নিয়ে অনেকের মনে আশঙ্কা ছিল, অস্বস্তি ছিল।’

‘এখানে কার কতটা দোষ এবং এখানে কোনো প্রকার অশুভ উদ্দেশ্য কারও আছে কি না, সেই বিষয়টা খুঁজে দেখা হচ্ছে।’

সেখানে কোনো পরিবর্তন প্রয়োজন কি না- জানতে চাইলে মন্ত্রী বলেন, ‘আমি এটা নিয়ে কোনো মন্তব্য করতে চাই না। পরিবর্তনের যদি প্রয়োজন হয়, সেই ধরনের কোনো সমস্যা বা সংকটের উদ্ভব হলে দেখা যাবে। আমার মনে হয় অচলাবস্থার সৃষ্টি এ পর্যন্ত হয়নি। পারসোন্যালি কেউ খারাপ কাজ করলে, অপকর্ম করলে, তাকে তো শাস্তি পেতেই হবে।’

ক্যাসিনোতে জড়িত থাকার প্রমাণ পাওয়ায় বিসিবির পরিচালক মো. লোকমান হোসেনকে গ্রেফতার করা হলেও তাকে অব্যাহিত দেয়া হয়নি- এ বিষয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘এ ব্যাপারে ব্যবস্থা নেবে। আমি বিসিবির সভাপতির সঙ্গে আলাপ করব। তাকে বোর্ডে রাখার কোনো যৌক্তিকতা নেই।’

বিসিবি (বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড) সভাপতি নাজমুল হাসান পাপনের বিরুদ্ধেও অভিযোগ রয়েছে- দৃষ্টি আকর্ষণ করলে মন্ত্রী বলেন, ‘না, সভাপতি আর্থিক কেলেঙ্কারিতে জড়িত- আমি এটা মনে করি না। এ ধরনের কোনো স্পেসিফিক অভিযোগ নেই, তথ্যপ্রমাণসহ কেউ বলতে পারেনি তার বিরুদ্ধে কোনো অভিযোগ রয়েছে।’

ভোলায় ভিডিও ফুটেজ থেকে অনেক কিছু পাওয়া যাচ্ছে

ফেসবুকে ধর্ম আবমাননার জন্য ভোলায় হতাহতের ঘটনা ও সেখানে হিন্দু পল্লীতে হামলার বিষয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘সরকার খুব কঠোর অবস্থানে আছে। এখানে প্রকৃত ঘটনা অনুসন্ধানে বিভিন্ন পর্যায়ে তদন্ত চলছে। সঠিকভাবে তদন্ত কাজ সম্পন্ন করার জন্য প্রধানমন্ত্রী নির্দেশ দিয়েছেন। যত দ্রুত তদন্ত কাজ সম্পন্ন করে এ ঘটনায় কোনো ষড়যন্ত্র আছে কি না, সম্প্রদায়িক শক্তির কোনো দুরভিসন্ধি আছে কি না। সবকিছু খতিয়ে দেখা হচ্ছে। তদন্ত শেষে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। জড়িতদের আইনের আওতায় আনা হবে।’

ভোলায় মন্দিরে হামলায় নেতৃত্ব দিয়েছেন শিবির নেতা, সহিংসতায় ভূমিকা রেখেছেন যুবদল নেতা- এ বিষয়ে সড়ক পরিবহনমন্ত্রী বলেন, ‘ভিডিও ফুটেজে কিছু কিছু চেনা মুখ, ছবি এসেছে। সেটা আরও ভালো করে তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। ভিডিও ফুটেজ থেকেও অনেক কিছু পাওয়া যাচ্ছে। সবকিছু শেষ হলে ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *