সেপ্টেম্বর ২৩, ২০২১

কুমিল্লায় শিশুকে গলাকেটে হত্যা

১ min read

নিউজ ডেস্ক : বাংলাদেশে কুমিল্লায় মেহেদি হাসান রিফাত নামে তৃতীয় শ্রেণিতে পড়ুয়া এক স্কুলছাত্রকে গলাকেটে হত্যার চারদিন পেড়িয়ে গেলেও এখনও ঘাতককে শনাক্ত করতে পারেনি পুলিশ।শহরতলীর আড়াইওরা এলাকায় প্রাইভেট পড়ে বাসায় ফেরার পথে দুর্বৃত্তরা ওই শিশু ছাত্রকে তুলে নিয়ে গলাকেটে হত্যার পর লাশ পুকুরে ফেলে দেয়।
এ হত্যাকাণ্ডের চারদিনেও ঘটনার ক্লু উদঘাটন করতে পারেনি পুলিশ।মেহেদী হাসান রিফাত ওই এলাকার প্রবাসী আলমগীর হোসেনের ছেলে। সে নর্থ সাউথ চাইল্ড একাডেমির তৃতীয় শ্রেণির ছাত্র ছিল।এদিকে একমাত্র সন্তানের এমন হত্যার খবর শুনে প্রবাস থেকে চলে আসেন পিতা আলমগীর হোসেন। ছেলের কবরের পাশে গিয়ে বারবার কান্নায় ভেঙ্গে পড়ছেন তিনি।

এ ঘটনায় পুলিশ হৃদয় নামে সন্দেহভাজন এক যুবককে গ্রেফতার করলেও জিজ্ঞাসাবাদে তার কাছ থেকে কোনো তথ্য উদঘাটন হয়নি।

তবে যে পুকুর থেকে রিফাতের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে সেই পুকুরের পানি সিচেও রিফাতের স্কুল ব্যাগ এবং হত্যাকাণ্ডে ব্যবহৃত ছুরি কিংবা অন্যান্য দেশীয় অস্ত্র উদ্ধার করতে পারেনি পুলিশ। হত্যাকাণ্ডে ব্যবহৃত অস্ত্র উদ্ধারসহ আরও কিছু আলামত সংগ্রহের চেষ্টা করছে তদন্ত কর্মকর্তা।

রিফাতের বাবা আলমগীর হোসেন বলেন, আমি একজন প্রবাসী এলাকার কোনো লোকের সঙ্গে আমি কখনও ঝগড়া-বিবাদে জড়াই না, কী কারণে আমার কলিজার টুকরা সন্তানকে ঘাতকরা এমন নির্মমভাবে হত্যা করল জানি না। আমি হত্যাকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চাই।
কোতোয়ালি মডেল থানার ওসি মো. আনোয়ারুল হক জানান, রিফাত হত্যার বিষয়টি অত্যন্ত গুরুত্ব দিয়ে আমরা তদন্ত করছি এবং ঘটনার রহস্য উদঘাটন ও ঘাতক শনাক্তে চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি। এরই মাঝে বেশ কয়েক দফায় ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি, পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে আলোচনা করে পূর্বে কোনো বিরোধ আছে কিনা তা জানার চেষ্টা করছি। আশা করি শিগগিরই এর ক্লু উদ্ধার করতে আমরা সক্ষম হব।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *