আগস্ট ২, ২০২১

কচুয়ায় ফসলী জমি থেকে গৃহবধুর লাশ উদ্ধার

১ min read
কচুয়ায় ফসলী জমি থেকে গৃহবধুর লাশ উদ্ধার

কচুয়ায় ফসলী জমি থেকে গৃহবধুর লাশ উদ্ধার

মো. ইউনুছ,কচুয়া(চাঁদপুর) : চাঁদপুরের কচুয়া উপজেলার বাছাইয়া ব্রিকফিল্ড সংলগ্ন কচুয়া-সাচার সড়কের প্রায় ৫শ গজ পশ্চিম পাশের একটি ফসলী জমি থেকে গৃহবধু লাবলী বেগম (২৩) এর লাশ উদ্ধার করেছে কচুয়া থানা পুলিশ।

সোমবার সকাল সাড়ে ৮টার দিকে স্থানীয়রা গৃহবধুর লাশটি দেখতে পেয়ে থানা পুলিশকে খবর দিলে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে। সে উপজেলার সহদেবপুর গ্রামের মুকসুদ আলীর কন্যা। প্রায় ৫বছর পূর্বে প্রেম সম্পর্কে উপজেলার মনপুরা গ্রামের শাহাদাত হোসেনর (৩০) সাথে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হয়।

লাবলী বেগম ঢাকার একটি গার্মেন্টসে চাকুরি করতো। সে সুবাদে স্বামীসহ একটি ভাড়াটিয়া বাসায় বসবাস করে আসে।

লাবলী বেগমের মা খোশনেয়ার বেগম জানান, কয়েক মাস যাবৎ পারিবারিক বিষয়াদি নিয়ে স্বামী-স্ত্রীতে ঝগড়া চলে আসছে। প্রায়ই নানান অজুহাতে লাবলীর স্বামী তাকে নির্যাতন করতো।

জাতীয় পরিচয় পত্রের প্রয়োজনীয়তায় দেখা দেওয়ায় গত রবিবার দুপুরে লাবলী ঢাকা থেকে বাড়ি রওয়ানা হয়ে আসে বলে আমাদেরকে জানায়। সন্ধ্যায় লাবলীকে ফোন দেওয়া হলে সে জানায় উপজেলার সাচার বাজার নিকট এসে পৌছেছে বলার পরপরই তার ফোনটি বন্ধ হয়ে যায়।

পরে বারবার চেষ্টা করেও তার ফোনে সংযোগ পাওয়া যায়নি। সংযোগ না পাওয়ায় বিভিন্ন স্থানে তার খোঁজ খবর নেই। পরদিন সোমবার সকাল সাড়ে ৮টার দিকে বাছাইয়া ব্রিকফিল্ড এলাকায় একটি লাশ পাওয়ার খবর পেয়ে সেখানে ছুটে গিয়ে লাবলীর লাশ দেখতে পাই।

এদিকে লাবলী বেগমের লাশ পাওয়া যাওয়ার খবর নিয়ে স্বামী শাহাদাত হোসেনও সকাল বেলায় শশুর বাড়িতে যায়। সে লাবলী বাড়ি পৌছেনি খবর পেয়ে ভোরে ঢাকা থেকে রওয়ানা হয়ে কচুয়ায় আসে বলে জিজ্ঞাসাবাদে জানায়।

কচুয়া থানার অফিসার ইনচার্জ মো. মহিউদ্দিন জানান, লাবলী বেগমের লাশ ময়না তদন্তের জন্য চাঁদপুরের মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। তাকে হত্যা করা হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। লাবলী বেগমের স্বামী শাহাদাত হোসেনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য থানায় নিয়ে আসা হয়েছে। তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। এ ব্যাপারে থানায় হত্যা মামলা দায়ের কার্যক্রম প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

উল্লেখ্য যে, শাহাদাত হোসেনের সাথে লাবলী বেগম বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হওয়ার পূর্বে আরিফ নামের এক যুবকে স্বামী হিসাবে গ্রহণ করে। ৩ মাস ঘর সংস্যার করার পর ওই স্বামীর সাথে তার বিচ্ছেদ ঘটে। অপর দিকে শাহাদাত হোসেনও আরেক বিয়ে করে। ওই স্ত্রীর ঘরে রয়েছে শাহাদাতের ৩ সন্তান।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *