সেপ্টেম্বর ২৪, ২০২১

আহত মোটরসাইকেল আরোহীর জুতার ভেতর থেকে বেরিয়ে পড়ে ১৮টি স্বর্ণের বার

১ min read

নিউজ ডেস্ক : রাজবাড়ীর গোয়ালন্দে দ্রুতগতির দুই মোটরসাইকেলের মুখোমুখি সংঘর্ষে গুরুতর আহত হয় দুই মোটরসাইকেল আরোহী।

এ সময় বিপ্লব হোসেন নামে একজনের জুতার ভেতর থেকে বেরিয়ে পড়ে ১৮টি স্বর্ণের বার।

ঘটনাটি ঘটেছে রোববার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে ঢাকা-খুলনা মহাসড়কের দৌলতদিয়া সাইন বোর্ড এলাকায়।

বিপ্লব ঢাকার তাঁতী বাজারের সুরঞ্জিত নামের এক স্বর্ণ ব্যবসায়ীর কর্মচারী। তিনি স্বর্ণের বারগুলো যশোরের ইব্রাহিম নামক এক স্বর্ণ ব্যবসায়ীর নিকট নিয়ে যাচ্ছিলেন বলে হাইওয়ে পুলিশ জানায়।

বিপ্লব হোসেন জানান, ১৮টি নয় ২০টি স্বর্ণের বার ছিল তার জুতার ভিতর। দ্রুত এবং দুষ্কৃতকারীদের সন্দেহের বাইরে থাকার জন্য তিনি তার মালিকের পরামর্শে এ উপায় বেছে নিয়েছিলেন।

আহত বিপ্লব হোসেন দাবি করেন, তার কাছে ২০টি স্বর্ণের বার ছিল। স্বর্ণগুলো বৈধ এবং এর কাগজপত্র রয়েছে।

এ ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ৫ জনকে গোয়ালন্দ ঘাট থানা পুলিশ তাদের হেফাজতে নিয়েছে।

তারা হলেন-বিপ্লবের মোটরসাইকেলের যাত্রী মানিকগঞ্জ জেলার সিংগাইর উপজেলার গোবিন্দল গ্রামের দেওয়ান মো. জাহাঙ্গীর আলমের ছেলে দেওয়ান মো. ইসমাইল হোসেন, দৌলতদিয়ার আঞ্জু বেগম, আবদুর রাজ্জাক, আবদুল করিম শেখ, মো. বাদশা মিয়া ।

এদের মধ্যে বিপ্লবের মোটরসাইকেলের যাত্রী দেওয়ান ইসমাইল হোসেন জানান, বিপ্লব আমার এলাকার ছেলে এবং ঘনিষ্ঠ পরিচিত বলে মহাসড়ক থেকে তার মোটরসাইকেলে উঠি। আমি কুষ্টিয়াতে বিএডিসির চাকরিতে যোগদানের জন্য যাচ্ছিলাম। ইচ্ছা ছিল গোয়ালন্দ মোড় পর্যন্ত তার সঙ্গে এসে সেখান থেকে কুষ্টিয়ার বাসে উঠে যাব। কিন্তু তার আগেই দৌলতদিয়া ঘাটে এ দুর্ঘটনাটি ঘটল। স্বর্ণের বার সম্পর্কে আমি কিছুই জানি না।

গোয়ালন্দ ঘাট থানার ওসি রবিউল ইসলাম জানান, দুর্ঘটনার শিকার মোটরসাইকেল আরোহীর জুতার ভেতর থেকে ১৮ পিস স্বর্ণের বার উদ্ধার করেছে স্থানীয়রা। স্বর্ণের বারের বিষয়ে কোনো বৈধ কাগজপত্র এখনও পাননি তারা। স্বর্ণের বার বহনকারী বিপ্লব গুরুতর আহত থাকায় তার চিকিৎসা চলছে। দুইটি স্বর্ণের বার হারিয়ে যাওয়ায় স্থানীয় কয়েকজনকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।

প্রতিটি বারের ওজন ১০০ গ্রাম করে হবে বলে তিনি ধারণা করে

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *